সর্বশেষ

ইতিহাস গড়ে সিরিজ জিতলো ভারত

ই-বার্তা ডেস্ক ।।  অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথম বারের মতো টেস্ট সিরিজ জিতলো ভারত।  অস্ট্রেলিয়ার দুর্বল ব্যাটিং লাইন আপের কারনে সিরিজ শুরুর আগেই অনেকটা আত্মবিশ্বাসী ছিল বিরাট কোহলির দল।  সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিয়ে দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটাল তারা।

 

 

১৯৪৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথম ভারত এবং অস্ট্রেলিয়া টেস্টে প্রথম মুখোমুখি হয়।  সেই সিরিজে ৪-০ তে হারের লজ্জায় পরে ভারত।  এরপর অস্ট্রেলিয়ার ঘরের মাঠে বেশ কয়েকবার সিরিজ খেললেও সিরিজ জেতা হয়নি তাদের।  তাদের সর্বোচ্চ সফলতা ছিল সিরিজ ড্র করা।  ১৯৭৭ সালে দু’দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে সর্বোচ্চ প্রতিদ্বন্দ্বিতা হলেও সেবারও ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ হারতে হয় ভারতকে।  ১৯৯৬ সালে সাদা পোশাকের এই আভিজাত্যের ক্রিকেটে দু’দলের মুখোমুখি লড়াইয়ের নামকরন করা হয় বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি।  অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক এলেন বর্ডার এবং ভারতের সাবেক অধিনায়ক সুনীল গাভাস্কারের সম্মানে এর নামকরন করা হয়।

 

 

নিজেদের মাটিতে এর আগে বেশ কয়েকবার সিরিজ জিতলেও দীর্ঘ ৭২ বছরের প্রতীক্ষা শেষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতলো বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন ভারতীয় দল।  বলা যায় একরকম আধিপত্য বিস্তার করেই সিরিজ জিতে নিয়েছে ভারত।  অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথম বারের মতো সিরিজের প্রথম টেস্ট জয় দিয়ে শুরু করে ভারত।  কিন্তু দ্বিতীয় টেস্টে ১৪৬ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় তুলে নিয়ে ভিন্ন কিছুর আভাস দিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া।  সেই ম্যাচে ৮ উইকেট নিয়ে অজিদের জয়ের নায়ক ছিলেন স্পিনার নাথান লায়ন। পরের ম্যাচেই আবার জয়ের ধারায় ফেরে ভারত।  ১৩৭ রানের বিশাল জয়ের ফলে ২-১ সিরিজে এগিয়ে যায় ভারত। 

 

 

পুরো সিরিজ জুড়ে ব্যর্থতার বৃত্তে ঘুরতে থাকা অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং লাইন চতুর্থ টেস্টেও হারিয়ে খুজেছে নিজরদের।  শেষ টেস্টের প্রথম ইনিংসে ভারত ৬২২ রানের বিশাল সংগ্রহ দার করালে, নিজেদের প্রথম ইনিংসে  ৩০০ রানে অল আউট হয়ে ফলোঅনে পরে অস্ট্রেলিয়া।  শেষ পর্যন্ত বৃষ্টির বাধায় পঞ্চম দিনে একটি বলও মাঠে না গড়ালে ড্র মেনে নেয় দু’দল।

 

পুরো সিরিজে যেখানে ভারতের একাধিক ব্যাটসম্যান মিলে করেছে ৬ টা সেঞ্চুরি সেখানে একটি শতকের দেখাও পায়নি অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা।

 

 

 

 

ই-বার্তা /মোঃ সালাউদ্দিন সাজু