এবার নেইমারকে পরামর্শ দিলেন ম্যরাডোনা

ই-বার্তা।।  রাশিয়া বিশ্বকাপে বারবার উঠে আসছে নেইমারের মাঠে পড়ে যাওয়া। সোমবার মেক্সিকোর বিপক্ষে গোল করে, গোল করিয়ে যতই নায়কের মর্যাদা পান নেইমার, মাঠে তার ফাউল আদায়ের চেষ্টা নিয়ে বারবার উঠছে প্রশ্ন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচিত হচ্ছেন তিনি।

যেখানে মেসি, রোনাল্ডো দেশে পাড়ি জমিয়েছেন সেখানে দলকে টেনে ওপরের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন নেইমার। তবু নেইমারের কীর্তির প্রায় সবটুকুই ঢাকা পড়ে যাচ্ছে তার এভাবে বারবার পড়ে গিয়ে কাঁতড়ানোর দৃশ্যতে।

তাই নেইমারকে আর্জেন্টাইন গ্রেট দিয়েগো ম্যারাডোনার পরামর্শ, অহেতুক ডাইভ নয়। বদলাও মানসিকতা! মেক্সিকো ম্যাচ জিতে ব্রাজিল কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার পর নেইমারকে এমন পরামর্শই দিলেন এ ফুটবল কিংবদন্তি।

৫৭ বছর বয়সী ম্যারাডোনারও চোখে পড়েছে নেইমারের পড়ে গিয়ে রেফারির দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা।

আর্জেনটাইন কিংবদন্তি বলেছেন, ‘নেইমার এখন তারকা ফুটবলার। ওকে জানতে হবে যে এই যুগে অহেতুক ডাইভিংয়ের শাস্তি হলুদ কার্ড। ভিএআর চালু হয়েছে। কোস্টারিকার বিপক্ষে এরই মধ্যে সে হলুদ কার্ড দেখেছে। ওর মাথার মধ্যে থাকা চিপ এবার বদলাতে হবে।’ অর্থাৎ মানসিকতা বদলাতে বলেছেন ম্যারাডোনা।

বিশ্বজুড়ে সাবেক তারকাদের অনেকেই বল পায়ে নেইমারের প্রশংসা যেমন করছেন, তেমনই সমালোচনা করেছেন তার রেফারির দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টার।

অনেকেই বলছেন যে, নেইমারের আচরণে ব্রাজিলের ভাবমূর্তিই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। গ্যারি লিনেকার, অ্যালান শিয়েরাররা টুইটে কড়া সমালোচনা করেছেন। শিয়েরার বলেছেন, ‘নেইমার, এবার বন্ধ করও এসব। আমরা বিরক্ত হয়ে উঠেছি।’

তবে যতই সমালোচনা হোক, নেইমার কিন্তু ক্রমশ ছন্দে ফিরছেন। পরিসংখ্যান বলছে, তিনি বিশ্বকাপে গোলের উদ্দেশে সর্বোচ্চ ২৩ শট মেরেছেন। এর মধ্যে ১২টি ছিল লক্ষ্যে। তিনি সবচেয়ে বেশি ১৬টি গোলের সম্ভাবনা তৈরিও করেছেন। সবচেয়ে বেশি ৪০টি ড্রিবলের চেষ্টা করেছেন। একইসঙ্গে সবচেয়ে বেশি ২৩ বার ফাউলের শিকার হয়েছেন।

দুই আসর মিলিয়ে বিশ্বকাপে ছয়টি গোল করে ফেললেন নেইমার। যার জন্য প্রয়োজন হয়েছে ৩৮ বার গোল করার চেষ্টা। লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর বিশ্বকাপে ছয়টি গোল করতে লেগেছিল যথাক্রমে ৬৭ ও ৭৪ শট।