সর্বশেষ

ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানিতে নেতারা গণঘুমে ব্যস্ত ছিলেনঃ তথ্যমন্ত্রী

ই-বার্তা ডেস্ক।।  মঙ্গলবার তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেঞ্জ রিপোর্টার্স ফোরামের (সিজিআরএফ) সঙ্গে মতবিনিময়কালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচন নিয়ে বিএনপি যে গণশুনানি করেছে সেখানে সবাই গণঘুমে ব্যস্ত ছিলেন।  

হাছান মাহমুদ বলেন, গণশুনানিতে সবাই গণঘুমে ব্যস্ত ছিলেন।  আমি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে দেখলাম গণশুনানির সময় তারা সবাই ঘুমাচ্ছিলেন।  গণশুনানির নামে এটি আসলে জনগণের চোখে ধুলা দেয়ার জন্য একটি নাটক মঞ্চায়ন করা হয়েছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, গতকাল ড. কামাল হোসেন, মির্জা ফখরুল ইসলামসহ তাদের একটি প্রতিনিধিদল ইউএস রাষ্ট্রদূতসহ কয়েকজন কূটনীতিকের সঙ্গে দেখা করেছেন।  বিএনপি কিংবা ঐক্যফ্রন্ট ঘন ঘন বিদেশিদের সঙ্গে দেখা করার মাধ্যমে তাদের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্ব প্রকাশ পায়। 

দেশে কিছু হলেই তারা বিদেশিদের কাছে ধরনা দেয়।  এর দ্বারা একটি দেশকে শুধু অপমানিত করা হয় তা নয়, নিজেদেরকেও অপমানিত করা হয়।  তাদের দলকেও অপমানিত করে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার হলেও ঝুঁকি মোকাবেলায় করণীয় কী, সে সম্পর্কে বাংলাদেশই পৃথিবীকে পথ দেখিয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে পথপ্রদর্শকের ভূমিকা পালন করেছে। বাংলাদেশ বিশ্বের সর্বোচ্চ সোলার প্যানেল ব্যবহারকারী দেশ।  বর্তমানে দেশে ৫০ লাখ সোলার প্যানেল ব্যবহৃত হচ্ছে যা চীন, ভারত কিংবা পৃথিবীর বড় কোনো দেশে নেই। 

গণমাধ্যমকর্মীরা জাতির যেকোনো প্রয়োজনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ভাষা আন্দোলন, স্বাধীকার আদায়, স্বাধীনতা সংগ্রাম ও স্বাধীনতা সংগ্রামের পরবর্তী প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তাদের ভূমিকা অপরিসীম। 

বাংলাদেশ ক্লাইমেটচেঞ্জ রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি কাউসার রহমানের সভাপতিত্বে ‘জলবায়ু পরিবর্তন ঝুঁকি মোকাবিলায় গণমাধ্যম’ শীর্ষক এ মতবিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসউদুল হক, সিনিয়র সাংবাদিক সন্তোষ শর্মা, নির্বাহী সদস্য মনিরুজ্জমান উজ্জ্বল প্রমুখ।

ই-বার্তা/মোঃ সালাউদ্দিন সাজু