সর্বশেষ

মঙ্গলগ্রহে রোভার পাঠাচ্ছে ইউরোপিয়ান স্পেস

ই-বার্তা ডেস্ক।।  সৌরজহৎ নিয়ে মানুষের কৌতূহলের শেষ নেই।  চলছে বিস্তর গবেষণাও।  আর সেই ধারাবাহিতায় আগামী বছর মঙ্গল গ্রহে নতুন রোভার মহাকাশযান পাঠাচ্ছে ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি (‘এসা’)। যা মঙ্গলে ২০২১ সাল নাগাদ পৌঁছবে । 

এসা জানিয়েছে, মঙ্গলে এখন পর্যন্ত যত রোভার পাঠানো হয়েছে তাদের মধ্যে এটি বৃহত্তম।  রোভারটির নামকরণ করা হয়েছে নোবেল পুরস্কার থেকে বঞ্চিত হওয়া এক বিশিষ্ট ইংরেজ মহিলা বিজ্ঞানীর নামে। ‘রোজালিন্ড ফ্র্যাঙ্কলিন’।  ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি ও রাশিয়ান স্পেস এজেন্সি যৌথভাবে মঙ্গলে পাঠাচ্ছে ওই রোভার।

জীবদেহের গঠনগত ও কার্যগত একক ডিঅক্সি-রাইবোনিউক্লিক অ্যাসিড (ডিএনএ)-এর গঠন আবিষ্কারে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল রোজালিন্ডের।  তিনি কোন দিন নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত হননি। অথচ, তাঁর দেখানো পথেই ডিএনএ-র ডাব্‌ল হেলিক্স (প্যাঁচানো মইয়ের মতো সজ্জা) মডেল দেওয়ার জন্য যৌথভাবে নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন তিন জন বিজ্ঞানী।  সেই হতভাগ্য ইংরেজ মহিলা বিজ্ঞানীকেই সম্মান জানাতে অভিনব পন্থা বেছে নিল ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি।

তারা জানিয়েছে, নতুন রোভারটির কাজ হবে মঙ্গলের ওপর ঘুরে ঘুরে প্রাণের উপাদান খোঁজা।  তাই পৃথিবীতে প্রাণের প্রধান উপাদানের গঠনকাঠামো যিনি আবিষ্কার করেছিলেন, সেই রোজালিন্ডের নামেই রাখা হয়েছে রোভারটির নাম। 

মঙ্গলের ঘোরার পাশাপাশি মঙ্গলের মাটি খুঁড়ে সেখানকার নানা রকমের উপাদান সংগ্রহ করবে।  তারপর সেই সব উপাদান বিশ্লেষণ করবে রোভার ‘রোজালিন্ড ফ্রাঙ্কলিন’।  তা থেকেই জানা যাবে মঙ্গলের মাটির নীচে প্রাণের উপাদানের অস্তিত্ব এখনও আছে কি না। 

ই-বার্তা/মোঃ সালাউদ্দিন সাজু