সর্বশেষ

মঙ্গলের বাতাসে অক্সিজেনের সন্ধান!

ই-বার্তা ডেস্ক।। ৩ মঙ্গলবর্ষ, যা পৃথিবীর হিসেবে প্রায় ৬ বছর ধরে মঙ্গল গ্রহের গালে ক্রেটারের বাতাস পরীক্ষা করছে নাসার কিউরিসিটি রোভার। নিজের ভেতরে থাকা রসায়ন পরীক্ষাগারে রোভারটি পেয়েছে কিছু চমকপ্রদ তথ্য। মঙ্গলের পাতলা হয়ে আসা বায়ুমণ্ডলে অন্যান্য গ্যাসের সঙ্গে এখনও রয়েছে অক্সিজেন। আর তার পরিমাণটাও একেবারে কম নয়। ০.১৩ শতাংশ। সায়েন্স আমেরিকান।

তবে মঙ্গলের অক্সিজেন একটু অদ্ভূত আচরণ করে। লাল গ্রহটিতে শীত ও গ্রীষ্মকালে অক্সিজের পরিমাণ কমে যায় বাড়ে বসন্তে। মঙ্গলের বায়ুমন্ডরের প্রায় পুরোটাই কার্বন ডাই অক্সাইড। ৯৫ শতাংশ বায়ুমন্ডল কার্বন ডাই অক্সাইডে তৈরী। যা শীতকালে জমে বরফ হয়ে যায়। কারণ প্রতিবেশী গ্রহটিতে অতিরিক্ত শীত পরে। গ্রীষ্মকালে তা আবার গ্যাসে পরিণত হয়। গালে ক্রেটারের পাতলা বাতাসে কিউরিসিটি দেখেছে এই মৌসুমি চক্রে আর্গন এবং নাইট্রোজেনের পরিমাণ বাড়ে কমে।

তবে বিষয়টি এখানেই সীমাবদ্ধ থাকেনি। মৌসুমি চক্রে অক্সিজেনও বাড়ে কম। তবে কেনো এভাবে অক্সিজেনের হ্রাস বৃদ্ধি ঘটে তার ব্যাখ্যা দেয়া কঠিন। বিজ্ঞানীদের ধারণা এই ক্রেটারের কোনও জায়গায় শীতকালে এই অক্সিজেন মজুদ হয়ে যাচ্ছে। তবে সমস্যা অন্যস্থানে। এই মরু গ্রহে কোনও গাছ নেই। পাওয়া যায়নি ভূ-উপরিভাগে কোনও তরল পানির অস্তিত্ব। তাহলে এই অক্সিজেন এলো কোথা থেকে। তবে কি মঙ্গলে প্রাণের অস্তিত্ব আছে, যা আমরা পাইনি এখনও? বিজ্ঞানীরা এবার খুঁজছেন সেই প্রশ্নের উত্তর।